1. [email protected] : admi :
  2. [email protected] : admin admin : admin admin
  3. [email protected] : atayur :
  4. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  5. [email protected] : News Reporter :
চট্টগ্রামে ‘খোঁজ মিলছে না’ ২৯৫ জন করোনা রোগীর
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামে ‘খোঁজ মিলছে না’ ২৯৫ জন করোনা রোগীর

Desk Report
  • Update Time : শুক্রবার, ১৯ জুন, ২০২০
  • ১৬৩ Time View

নভেল করো'নাভাইরাস (কোভিড ১৯) পজিটিভ হয়েছেন এমন ২৯৫ জন রোগীর খোঁজ মিলছে না। নমুনা পরীক্ষার সময় এ সব রোগীর কেউ কেউ সঠিক নাম-ঠিকানা দেননি। আবার কেউবা দেননি সঠিক মোবাইল নম্বরও কিংবা মোবাইল নম্বর দিলেও তা বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

রোগীর অবস্থান শনাক্ত করতে না পারায় তাদের বাসস্থান লকডাউন করা যাচ্ছে না। ফলে বিপাকে পড়েছে চট্টগ্রাম মহানগর পু'লিশ (সিএমপি)। এ সব রোগীর স'ঙ্গেও যোগাযোগও করতে পারছে না স্বাস্থ্য প্রশাসন। প্রশাসনের নজরদারির বাইরে থাকায় এরা প্রকাশ্যে ঘোরাঘুরি করে করো'নাভাইরাসের বিস্তৃতি ঘটাচ্ছে বলেও আশঙ্কা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর।

ভবি'ষ্যতে বিড়ম্বনা এড়ানোর জন্য নমুনা নেওয়ার সময় রোগীর সঠিক নাম-ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর লিপিব'দ্ধ করা এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) ফটোকপি সংগ্রহের তাগিদ দিয়ে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালককে চিঠি দিয়েছেন সিএমপির বিশেষ শাখার উপ-কমিশনার মো. আবদুল ওয়ারিশ খান।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বিভাগের ভারপ্রা'প্ত স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোস্তফা খালেদ আহমেদ বলেন, ‘পু'লিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নমুনা নেওয়ার সময় রোগীর নাম-ঠিকানা ও মোবাইল নম্বরের স'ঙ্গে যেন এনআইডি কার্ডের ফটোকপি রাখা হয়। আমর'া বি'ষয়টা বিবেচনায় নিয়েছি।

আমর'া অবশ্যই রোগীদের অনুরোধ করব সঠিক নাম-ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর দেওয়ার জন্য। তবে এনআইডি কার্ড নিয়ে একটু সমস্যা আছে। কেউ যদি এনআইডি কার্ড স'ঙ্গে না আনেন, সেই রোগীকে তো আমর'া ফেরত দিতে পারব না। বুধবার (১৭ জুন) পর্যন্ত চট্টগ্রামে করো'নায় আ’ক্রা'’ন্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন মোট পাঁচ হাজার ৭৬৩ জন। মা’রা গেছেন ১২৮ জন।

গত ম'ঙ্গলবার পর্যন্ত চট্টগ্রামে ২৮৩ জন করো'নায় আ’ক্রা'’ন্ত রোগীর কোনো হদিস পায়নি সিএমপি। এ অবস্থায় নমুনা সংগ্রহের ক্ষেত্রে একাধিক মোবাইল নম্বর সংযুক্ত করার পাশাপাশি জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

জানতে চাইলে সিএমপির উপ-কমিশনার (বিশেষ শাখা) মো. আবদুল ওয়ারিশ খান বলেন, ‘নগরীতে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রায় ২৯৫ জন করো'না পজিটিভ রোগীর কোনো ঠিকানা কিংবা তাদের স'ঙ্গে যোগাযোগের কোনো নম্বার পাইনি। অনেক রোগীই তাদের ঠিকানা ভুল দিচ্ছেন। অনেকে অসম্পূর্ণ দিচ্ছেন। মোবাইল নম্বর হয়ত ভুল অথবা বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

কেউ কেউ শুধু ঠিকানা অথবা মোবাইল নম্বর দিচ্ছেন। ঠিকানা ধরে তাদের শনাক্ত করা যাচ্ছে না। এ জন্য তাদের বাসস্থান আমর'া লকডাউন করতে পারছি না। তাদের আইসোলেশন নিশ্চিত করাও যাচ্ছে না। এ জন্য আমর'া নাম-ঠিকানা ও মোবাইল নম্বরের স'ঙ্গে এনআইডি কার্ডের ফটোকপি নেওয়ার অনুরোধ করেছি।

চট্টগ্রাম জে'লার সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘লাপাত্তা রোগীরা করো'নাভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তারে বড় ভূমিকা রাখছে বলে আমা'দের ধারণা। অনেককে খুঁজতে খুঁজতেই ১৪দিন পার হয়ে গেছে। এর মধ্যে তারা যে সুস্থদের সংস্পর্শে যায়নি, সেটা তো আমর'া নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। এ জন্য নমুনা সংগ্রহের বুথগু'লোতে পরীক্ষা করতে যারা আসছেন, তাদের রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে এখন জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্মসনদ অনুলিপি জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
News Bulletin © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz