1. [email protected] : admi :
  2. [email protected] : admin admin : admin admin
  3. [email protected] : atayur :
  4. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  5. [email protected] : News Reporter :
দ্বিতীয় দিনের বৈঠকও নিষ্ফল, যে কারনে লাদাখে আরও শক্তি বাড়াচ্ছে চীন
বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন

দ্বিতীয় দিনের বৈঠকও নিষ্ফল, যে কারনে লাদাখে আরও শক্তি বাড়াচ্ছে চীন

Desk Report
  • Update Time : শুক্রবার, ১৯ জুন, ২০২০
  • ১১৫ Time View

লাদাখের গলওয়ান উপত্যকায় সং'ঘর্ষের পর গত কয়েকদিন থেকে ভারত ও চীনের মধ্যকার উত্তেজনা কিছুটা কমলেও সমস্যার সমাধান এখনো হয়নি। বুধবারের (১৯ জুন) পর বৃহস্পতিবারও ভারত-চীন মেজর জেনারেল পর্যায়ের বৈঠকও নিষ্ফল হয়েছে। শুক্রবার (১৯ জুন) প্রায় ছয় ঘন্টা দু’দেশের সেনাকর্তারা বৈঠক করেন। কিন্তু তার পরেও পূর্ব লাদাখে ভারতের জমি ছেড়ে যাওয়ার কোনও লক্ষণ দেখায়নি চীন সেনা। উল্টো দখল করা ভুখণ্ডে নিজেদের শক্তি আরও বাড়িয়েছে চীন। এমনই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা। এদিকে এই অবস্থায় পাল্টা পেশিশক্তি দেখাতে আজ ১২টি সুখোই ও ২১টি মিগ-২৯ যু'দ্ধবিমান চেয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব জমা দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। যা কিনতে খরচ হবে ৫ হাজার কোটি টাকা। কয়েক স্কোয়াড্রন সুখোই এখন সীমা'ন্ত সংল'গ্ন ফরওয়ার্ড বেসগু'লিতে এনে রাখা হয়েছে। আগামী মাস থেকে অত্যাধুনিক রাফাল বিমানও আসতে শুরু করবে বলে জানিয়েছে ভারতীয় বিমানবাহিনী।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ন বলেছেন, গলওয়ান উপত্যকায় যে গভীর উদ্বেগজনক সং'ঘা'ত ঘটেছে। বি'ষয়টি নিয়ে দু’দেশেই যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার ব্যাপারে সহমত রয়েছে। শান্তি সুরক্ষিত রাখা ও উত্তেজনা বন্ধে আলোচনা চলছে। প্রস'ঙ্গত, সোমবার (১৫ জুন) রাতে লাদাখ সীমা'ন্তের গলওয়ান উপত্যকায় দুদেশের মধ্যে র'ক্তক্ষয়ী সং'ঘর্ষে অন্তত ২০ ভারতীয় সেনা নি'হত হন। গলওয়ান উপত্যকায় চীনা বাহিনীর একটি তাবু সরানোকে কেন্দ্র করেই এ সং'ঘর্ষ বাধে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। উল্লেখ্য, চীন ও ভারতের মধ্যে সর্বশেষ সং'ঘা'ত হয়েছিল ১৯৭৫। তখন ভারত-চীন সীমা'ন্তে শেষবার কোনও সেনা জওয়ানের মৃ'ত্যু হয়েছিল। এরপর থেকে ওয়েস্টার্ন সেক্টরে লাদাখে বা ইস্টার্ন সেক্টরে অরুণাচলে দুই দেশের বাহিনীর মধ্যে হাতাহাতি-মা'রামা'রি কম হয়নি। কিন্তু এ ধরনের প্রাণঘা'তী মা'রামা'রি কখনও হয়নি। তবে এই সং'ঘা'তে কোনও পক্ষই আ'গ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করেনি। লোহার রড, লাঠি, পাথর নিয়ে হা'মলা করেছে চীনা সেনা। তারপরই প্রত্যাঘা'ত করেছে ভারতীয় সেনারা।

ভারত ও চীনের মধ্যে সাম্প্রতিক উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে দেশ দুটি বেশ কিছুদিন ধরে সীমা'ন্তে ভারী অ'স্ত্র মজুত করেছে। পূর্ব লাদাখের সীমা'ন্ত অঞ্চলে ধীরে ধীরে এসব অ'স্ত্র নিয়েছে দুই দেশ। ভারী অ'স্ত্রের মধ্যে কামান এবং যু'দ্ধের গাড়িও রয়েছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর সূত্রের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, উভয়পক্ষের মধ্যে সং'ঘা'তের পরিবেশ বিরাজ করায় এসব অ'স্ত্রের মজুত করা হয়েছে। কিছুদিন আগে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছিল, চীন সেনাবাহিনী সীমা'ন্তের যে এলাকায় রয়েছে সেখান থেকে ভারতের অংশে ঢুকতে মাত্র কয়েক ঘণ্টা লাগবে। লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের বিভিন্ন জায়গায় ভারতের স'ঙ্গে সং'ঘর্ষেও জড়াচ্ছে চীনা বাহিনী। ভারতীয় সূত্রের বরাতে খবরে বলা হয়, চীনের সেনাবাহিনী লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছের ঘাঁটিগু'লিতে নানান যু'দ্ধের গাড়ি ও ভারী যু'দ্ধের সরঞ্জাম নিয়ে এসেছে। বি'ষয়টি জানতে পেরে ভারতও আর্টিলারের মতো অ'স্ত্র ওই এলাকায় পাঠিয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
News Bulletin © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz