1. [email protected] : admi :
  2. [email protected] : admin admin : admin admin
  3. [email protected] : atayur :
  4. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  5. [email protected] : News Reporter :
নারী কাউন্সিলরের বুকের উড়না কেরে নিয়ে চুলের মু’ঠি ধরে মা’র’ধর,চুপ শামিম ওসমান
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১২:৩৪ অপরাহ্ন

নারী কাউন্সিলরের বুকের উড়না কেরে নিয়ে চুলের মু’ঠি ধরে মা’র’ধর,চুপ শামিম ওসমান

Desk Report
  • Update Time : শনিবার, ২০ জুন, ২০২০
  • ৩২১ Time View

সোনিয়া দেওয়ান প্রীতি : সাংবাদিক হিসেবে আমি এখানে কোনো রাজনৈতিক চাল কিংবা আওয়ামীলীগ-বিএনপি প্রস'ঙ্গে কোনো কথা বলব না। কিন্তু একজন নারী হিসেবে আমি এখানে শুধুমাত্র অ'পর একজন সম্মানী এবং জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি

হিসেবে নিযুক্ত নারীকে নিয়ে বলব- আমি তার যন্ত্রণার জায়গাটা ফিল করতে পারছি। আমা'র মনে হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার এই চোখের জল ও তার ভেতরের য’ন্ত্রণার কারণ একটাই- অ'প’মা’নবোধ,

সমাজের একজন সম্মানী নারী হয়েও আজ তারই স্নে'হতুল্য সন্তানের বয়সী কিছু পুরুষ দ্বারা তিনি নি’র্যাতি”ত হয়েছেন। সন্তানের বয়সি এসব বখা’টে ছেলেপুলেরা তার গায়ের

উড়না টেনে হেচরে সরিয়ে নিয়েছে, তার চুলের ‘মুঠি ধরে তাকে একের পর এক আ’ঘা’ত করেছেন, তার মতো মানবপ্রেমী সম্মানীত নারীকে অক’থ্য ভাষায় গা’লিগা’লাজ করেছে।

তার আগে পরের সব সমাজসেবা বাদ দিলাম। যেখানে একজন পুরুষ কাউন্সিলর একটিমাত্র ওয়ার্ডের জনগণের প্রতি দায়িত্ব পালন করতে হি’মশিম খায়, সেখানে এই

নারী কাউন্সিলর তার দায়িত্বে থাকা ৩টি ওয়ার্ডের জনগণের প্রতি সমানভাবে সমান গু'রুত্ব দিয়ে কাজ করে গেছেন।

বিশেষ করে এই করো’নাকা’লের শুরু থেকে যখন মানুষ ঘর থেকে বের 'হতে মৃ’ত্যু ভ’য় পেতো, সেই তখন থেকে নিজের জীবনের তোয়া’ক্কা না করে, নিজের পরিবারের কথা না

ভেবে ৩টি ওয়ার্ডের অস’হায় মানুষের পাশে থেকে দিন-রাত কাজ করে গেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, তার ওয়ার্ডের বাইরের বিভিন্ন এলাকার অসংখ্য অসহায় দরি’দ্র মানুষের ঘরে ঘরেও তিনি নিজ অর্থায়নে খাদ্য’সামগ্রী পৌছেছেন। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমেও প্রমান

হিসেবে রয়ে গেছে। এছাড়া করো’নাভা’ইরা’সের ভ’য়ে তার এলাকা এবং বাইরের বিভিন্ন এলাকার গ’র্ভবতি অসহা’য় নারীদের পাশে যখন ডা’ক্তার-নার্স কিংবা কোনো আ'ত্মীয়-প্রতিবেশীরাও দাঁড়ায় না, তখন এই আয়শা আক্তার দিনা তাদের সাহায্যে ছুটে গেছেন।

মায়ের মমতা দিয়ে সেইসব নারীর আর্থিক ও সামাজিক সহ ডেলিভারির সমস্ত দায় দায়িত্ব বহন করেছেন এবং এখনও করছেন। অথচ একজন অস’হায় ভা’ড়া’টিয়ার পক্ষ

নিয়ে ন্যায় বিচারকে কেন্দ্র করে যে অ'প’মান তাকে সহ্য করতে হলো তা কি সমগ্র নারী কূলের অ’পমান নয়? আজ যেভাবে কাউন্সিলর দিনাকে হে'ন’স্থা করা হলো, একইভাবে

কি কোনো না কোনোদিন আমা'দের সাথেও এমন হয়নি? কিংবা সামনে হবে না বলে মনে হচ্ছে? না, এমনটা হয়ে আসছে এবং হবে। পুরু”ষ শাসিত সমাজে আমর'া নারীরা

আমা'দের শ্রম ও যোগ্যতা দিয়ে যতই উচ্চ পদস্থ হইনা কেনো, এই সমাজ এবং সমাজের নোং’রা কিছু পুরুষ যারা যোগ্যতায় আমা'দেরকে টপ’কাতে না পেরে চাল চেলে আমা'দেরকে পিছিয়ে দিয়ে অধিনস্থ করে রাখতে চায়।

কাউন্সিলর দিনার সাথেও এর ব্যতিক্রম কিছু হচ্ছেনা। যে দেশের সর্বোচ্চ ক্ষমতার অধিকারী একজন নারী, যে জে'লার সিটি মেয়র একজন নারী; সেই শহরে সেই দেশে

একজন নির্বাচিত ও অন্য অনেক পুরুষ জনপ্রতিনিধিদের তুলনায় পরিক্ষীত নারী জনপ্রতিনিধিকে এভাবে অ'প’মান অ'পদস্থ 'হতে হয়? কোথায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী?

কোথায় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী? কোথায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের অন্য সমস্ত নারী কাউন্সিলররা? কোথায় এই শহরের বিভিন্ন সংগঠন তথা বিভিন্ন স্তরে

প্রতিনিধিত্ব করা নারীরা? কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা বিএনপি করে না আওয়ামীলীগ করে তা দেখার বি'ষয় আমা'র না, কেননা আমি কোনো রাজনৈতিক দলের মতাদর্শ নিয়ে চলি না।

আমা'র কাছে ‘মানবতার’ চেয়ে বড় কোনো রাজনৈতিক দল নেই। আমি সেই দলের অনুসারী হিসেবে বলতে চাই- এই নারী কাউন্সিলরের সাথে যা হচ্ছে তা মোটেও আমা'দের

নারীদের জন্য সুখকর নয়। আজ যদি একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হওয়া সত্ত্বেও একজন নারীকে এভাবে অ'প’মান অ'প’দস্থ 'হতে হয় পুরুষদের কাছে, তবে এই দেশের

অন্যসব সাধারন নারীদের অবস্থাটা তাহলে কি 'হতে পারে? যার পাশাপাশি চেয়ারে বসার যোগ্যতাও এখনও পর্যন্ত এসব ছেলেপুলেদের হয়নি, সেই নারী জনপ্রতিনিধির বুকের

উড়না কেরে নিয়ে তার চুলের মু’ঠি ধরে যারা তাকে মা’র’ধর করতে পারে এবং উল্টো আবার তারই বিরু’'দ্ধে মা’মলা দিয়ে তাকে ফেরারী আসা’মী করতে পারে,

সেইসব ছেলেপুলেরা এই শহরের আরসব সাধারন নারীর সাথে কি করতে পারে এতটুকু ধারনা হয়ত অনেকেই করতে পারছেন। আজ যদি এই নারী জনপ্রতিনিধি সঠিক বিচার

না পায়, আজ যদি দোষিদের যথাযথ শা’স্তি না দেয়া হয়, তাহলে ওরা আরও সাহসী হয়ে উঠবে এবং এমন আরও অনেক জ’ঘ’ন্য ঘটনার জন্ম দেবে।মাননীয় এমপি শামীম

ওসমান, আপনার ঘরেও নারী আছে। আপনিও ৩জন নারীর অ'ভিভা’বক। সুতরাং রাজনৈতিক খেলা বাদ দিয়ে সময় থাকতে একজন নারীর প্রতি ন্যায় বিচার করুন। এই

নারী অন্য একটি দলের অুনসারী হয়েও আপনাকে সম্মান জানিয়ে আপনার ন্যায় বিচারের অ'পেক্ষায় রয়েছে, আর আপনার নিজ দলের অনুসারী তথা ছোট ছোট

ছেলেপুলেরা আপনারই ছবি ভেঙে আপনারই দলের মাথাদের ছবি ভেঙে এই নারীর বিরু”'দ্ধে উ’ল্টো মা’ম’লা দিয়ে তাকে হ’য়রা’নী করে চলেছে,

আপনার মতো জ্ঞানী গু'ণি রাজনীতিবিদ এসব খবর রাখেন না তা কি করে হয় মাননীয় এমপি? এই শহরের ঘরে-বাইরের তথা সমগ্র নারী সমাজ এখন শুধুমাত্র আয়শা আক্তার

দিনার মতো ন্যায় বিচারকের প্রতি আপনার ন্যায় বিচারের অ'পেক্ষায় রয়েছে। তারা দেখতে চায়, আপনি এই শহরের সকলের নয়নের মণি শামীম ওসমান একজন নারী

জনপ্রতিনিধির বেলায় কেমন বিচার করেন। মাননীয় এমপি একটা বিশেষ অনুরোধ আপনার কাছে- যদি নিজের দেয়া কথা রাখতে এই ঘটনার বিচার করতেই বসেন,

তাহলে আপনার ঘরে থাকা ৩জন নারীর কাছে আগে জিজ্ঞেস করে ঘর থেকে বের হবেন যে- এই ঘটনার ন্যায় বিচার তারা কেমনটা প্রত্যাশা করে। আপনিতো আল্লাহকে

ভয় করেন, তাহলে আপনার আর কিসের ভয়? আসুন, এবং সময়ের কাজ সময়ে করুন, ন্যায় বিচার করুন। আমি যতটুকু জানি আপনি নিজেও কাউন্সিলর আয়শা

আক্তার দিনাকে ছোট বোনের মতো স্নেহ করেন। আমর'া দেখতে চাই একজন বড় ভাই, তার ছোট বোনের শ্লী’লতা’হানী করা অস’ভ্য বাচ্চাগু'লোর বিচার কিভাবে করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
News Bulletin © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz