1. [email protected] : admi :
  2. [email protected] : admin admin : admin admin
  3. [email protected] : atayur :
  4. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  5. [email protected] : News Reporter :
আমি যেভাবে ৭ দিনেই করোনাভাইরাস পজেটিভ থেকে নেগেটিভ হলাম- ঢাবি ছাত্র
রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১০:৪২ অপরাহ্ন

আমি যেভাবে ৭ দিনেই করোনাভাইরাস পজেটিভ থেকে নেগেটিভ হলাম- ঢাবি ছাত্র

Desk Report
  • Update Time : বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০
  • ১৬৯ Time View

করো'নাভাইরাসের এই ভ'য়াবহ দিনগু'লোতে সারাদিন এটাসেটা নিয়ে কাজ করে যাওয়া ছেলেটা গত ৮ এপ্রিল থেকে হঠাৎ বাইরে যাচ্ছেনা! মাঠে থেকে কাজগু'লো করছে না।কারণ ছিল আমা'র কোভিড-১৯ “পজিটিভ” আসা। ৬-৭ দিনের মধ্যেই আল্লাহর রহমত আর আপনাদের দোয়ায় কোভিড-১৯ নেগেটিভ করতে পেরেছি।ব্যাপারটা কিছুটা টের পেয়ে অনেক ভাই, বোন, বন্ধুবান্ধব নক দিয়েছেন। খোঁজ খবর নিয়েছেন। আপনাদের দোয়া আর ভালবাসায় আমি এখন পুরোপুরি সুস্থ।অসুস্থতার এই সময়টাতে বাসায় থেকে যতটুকু পেরেছি আমা'র প্রিয় মাতৃভূমির অসহায় মানুষগু'লোর পাশে দাঁড়িয়েছি। চেষ্টা করে যাচ্ছি কিছু করার।আমা'র ভিডিওটা শেয়ার করলাম এজন্য যে, আপনাদের যেন কিছুটা উপকারে আসে। পজেটিভ আসার ৬ দিনের মধ্যে আল্লাহর রহমতে নেগেটিভ করে ফেলার পেছনে কী কী করেছিলাম। সে কথায় এখানে বলেছি। দেখবেন, আশা করছি উপকৃত হবেন। সচেতন থাকুন, সুস্থ থাকুন।

যেভাবে আমি সুস্থ হলামঃ

আমা'র করো'নাভাইরাস পজেটিভ এসেছিল। সেই পজেটিভ থেকে আজকে রেজাল্ট আসে নেগেটিভ। পজেটিভ হওয়ার পর থেকে গত ৬-৭দিন বাসায় ছিলাম। আজকে আল্লাহ্‌র রহমতে নেগেটিভ এসেছে।আমি আসলে এই জায়গাটা থেকে আমা'র অ'ভিজ্ঞতা জানাতে চাইছি। পজেটিভ থেকে নেগেটিভে নিয়ে আসতে হলে আসলে আমা'দের কী করণীয়। বা আমা'র ক্ষেত্রে কোন কোন বি'ষয়গু'লো কাজ করেছে?আপনারা জানেন ইতোমধ্যেই করো'নাভাইরাস বাংলাদেশে ব্যপকহারে বিস্তার লাভ করছে। আমা'দের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৩ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের অধিকাংশ শিক্ষার্থী নিজ নিজ জায়গা থেকে এলাকায় জনকল্যাণমূলক কাজ করছে। সেবামূলক কাজ করছে। ত্রাণ বিতরণ করছে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে আমিও তার ব্যতিক্রম ছিলাম না। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসেই অবস্থা করেছি। বিগত কয়েকদিনে বেশ কয়েক জায়গায় ত্রাণ বিতরণ করেছি। টিএসসিতে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি। নিজের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করেছি।তাছাড়া আপনারা জানেন, ঢাকাবিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে তিন-চার শয়ের মতো অবলা কুকুর বিড়াল রয়েছে। এইসব অবলা প্রাণীদের গত মা'র্চ মাসের ২১ তারিখ থেকে খাওয়ানোর কাজটা আমি করে আসছিলাম কয়েকজন ভলেন্টিয়ারসহ। এই কুকুর বিড়ালগু'লোকে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দেখাশোনা করা। তারপর ত্রাণ বিতরণ করা। হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ অন্যান্য জিনিষ বিতরণ কাজে নিযুক্ত ছিলাম।

এই কাজের জন্য অধিকাংশ সময় আমা'র ঘরের বাইরে থাকতে হয়েছে। যে সময়ে আসলে আমা'র ঘরে থাকা উচিৎ ছিল।আমা'র বাবা মা দেশের বাড়ি থেকে প্রতিদিন ফোন দিতেন বাসায় যাব'ার জন্য। একটা পর্যায় সি'দ্ধান্ত নিলাম বাসায় যাব'। কিন্তু মনে হলো আমি টেস্ট করে তারপর যাব'। টেস্ট করা ছাড়া ঢাকা থেকে আমি আমা'র এলাকায় যাব'। একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে টেস্ট না করে জাওয়া উচিৎ হবে না।সেই দায়ব'দ্ধতা থেকে টেস্ট করাতে গেলাম। অ'প্রত্যাশিতভাবে আমা'র করো'নাভাইরাস পজেটিভ চলে আসে। রাত ১২ টার দিকে আইইডিসিআর থেকে ফোন দিয়ে আমাকে বলে আপনার করো'নাভাইরাস পজেটিভ।পজেটিভ আসার পরে আমি সাথে সাথে যেটি করেছি সেটি হচ্ছে- আমা'র সাথে বিগত কয়েকদিন যারা ছিল তাদেরকে ফোন দিয়ে, ম্যাসেজ দিয়ে বি'ষয়টা জানিয়ে দেই। তাদের বলেছি সন্দে'হ হলে আপনারা টেস্ট করাতে পারেন অথবা কোয়ারেন্টিনটা মানার চেষ্টা করেন। কারণ আমা'র জন্য কেউ আ'ক্রা'ন্ত হোক এটা আমি কখনই চাই না। আমা'র বিবেকবোধ থেকেও আমি সেটা করব না। আসা করি আপনারাও সেটা করবেন না।আমা'র পজেটিভ আসে গত ৮ এপ্রিল। তারপর ১৪ এপ্রিল আবার স্যাম্পল দিয়ে আসি। আজ ১৫ এপ্রিল দুপুর বেলা আমাকে জানানো হয় করো'নাভাইরাস নেগেটিভ।

তো পজেটিভ থেকে নেগেটিভে আসলো কীভাবে সেটিই আপনাদের স'ঙ্গে শেয়ার করতে চাই। আমি কী কী করেছি সেই অ'ভিজ্ঞতা জানাতে চাই এই কারণে যে , অনেকেই আ'ক্রা'ন্ত হচ্ছেন। মৃ'ত্যুবরণ করছেন। যারা মৃ'ত্যুবরণ করছেন তাদের আ'ত্মা'র মাগফিরাত কামনা করছি।আল্লাহ্‌ না করুক। যদি কেউ আ'ক্রা'ন্ত হয়ে যান, সেক্ষেত্রে কী করবেন? বা আমি কী করেছি- প্রথমে আমি নিজেকে একটি ঘরে একা আব'দ্ধ করে ফেলি। আমা'র আশেপাশে কাউকে আসতে দেইনি। একেবারেই একা ছিলাম।এরপর আমি প্রতিদিন যখন গোসল করতাম। তখন পানি গরম করে নিতাম। সেই পানিতে স্যাভলন মিশিয়ে গোসল করেছি। স্বাভাবিক ভাবেই স্যাভলন পানি দিয়ে গোসল করা ভালো। এই সময়টাতে অবশ্যই গরম পানিতে স্যাভলন মিশিয়ে গোসল করবেন। এটি জীবাণুনাশের জন্য অনেক ভালো কাজে দিবে।এরপর আমি প্রতিদিন ঘু'ম থেকে উঠেই ব্যায়াম করতাম। তার পরপরই গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করতাম। গরম পানি যতটুকু গলায় সহ্য করা যায়। সেই পরিমান গরম পানি সাথে লবন দিয়ে গড়গড়া করতাম। প্রতিদিন দুপুরে এবং ঘু'মানোর আগে করতাম। প্রতিদিন এটি ৩ বার করতাম।আর একটি ব্যাপার যেটি খুবই গু'রুত্বপূর্ণ আমা'র কাছে মনে হয়েছে। বেশি কাজে দিয়েছে আমা'র মনে হয়। প্রতি ১ ঘন্টা পরপর গরম পানি খাওয়া। যতটা গরম আপনি সহ্য করতে পারেন। আমি ১ ঘন্টা পরপর এক-দুই গ্লাস করে গরম পানি খেতাম। আমা'র মনে হয় এটি খুব বেশি কাজে দিয়েছে আমা'র ভাইরাস দূর করার জন্য।

আর যেগু'লো আমর'া জানি- ১ ঘন্টা পরপর সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়া ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে। যেটি আমি সব সময় করেছি। সব সময় সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতাম। আমা'র কাপড়-চোপড়গু'লো পরিষ্কার করে রাখতাম। রুমটা খুব ভালোভাবে স্যাভলন পানি দিয়ে প্রতিদিন পরিষ্কার করেছি।আর খাবারের ক্ষেত্রে সব রকম খাবার খাওয়া যাব'ে। যেটা আইইডিসিআর থেকে আমাকে বলেছে। খাবার নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। যেকোনো খাবার খেতে পারেন। তবে ভিটামিন সি টা বেশি রাখা ভালো। আমি ট্যাব'লেট কেভিট –সি টা খেয়েছি। ১০ ট্যাব'লেট থাকে। আমি ৬ টা খেয়েছি মাত্র। আর খাওয়া লাগে নি।এছাড়া কমলা লেবু, লেবুর শরবত, আপেল, মালটা, নাশপাতি। যেগু'লো আমি খেয়েছি। এগু'লো সবাই যে খেতে পারবে তা কিন্তু নয়। অনেক দরিদ্র লোকজনের পক্ষে সম্ভব নয়।তো এক্ষেত্রে কোনো গরীব মানুষ যারা প্রত্যন্ত অঞ্চলের। তারা যদি কেউ আ'ক্রা'ন্ত হন। তাহলে তাদের বলব, আপনারা প্রতি ১ ঘন্টা পরপর সাবান পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলবেন। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবেন। গরম পানি খাবেন। তিনবেলা গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করবেন। যদি কারো কোনো কারণে পজেটিভ চলে আসে। ভয়ের কোনো কারণ নেই ইনশাআল্লাহ্‌ নেগেটিভ চলে আসবে।এটা ছিল আমা'র অ'ভিজ্ঞতা। আমা'র অ'ভিজ্ঞতা থেকে বলতে চাই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। কারো ভাইরাস পজেটিভ হয়ে গেলেও ভয়ের কোনো কারণ নেই। একেবারেই ভে'ঙ্গে পড়ার কোনো কারণ নেই। শুধু সচেতন থাকুন। নিজেকে একটি রুমে আব'দ্ধ করে ফেলুন। আর সবকিছু মেনে চলুন। পজেটিভ হলেও পরে নেগেটিভ চলে আসবে আল্লহর রহমতে। আমা'র যেমন ৫ -৬ দিন সময় লেগেছে । আপনাদেরও এমনই সময়ের ভেতরই ভালো হয়ে যাব'ে।আর সবশেষে আপনাদের কাছে করজোড়ে অনুরোধ করি। দয়াকরে এই সময়টাতে ঘরে থাকুন। নিজে বাঁচুন, আপনার পরিবারকে বাঁচান। আমা'দের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে বাঁচান।লেখক: ইসতিয়াক আহমেদ হৃদয়, শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়অনুলিখন: শেখ সাইফ

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
News Bulletin © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz