1. [email protected] : admi :
  2. [email protected] : admin admin : admin admin
  3. [email protected] : atayur :
  4. [email protected] : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
  5. [email protected] : News Reporter :
২০ কোটি টাকা আমরা খেয়ে ফেলিনি: ঢামেক পরিচালক
বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৮:১১ অপরাহ্ন

২০ কোটি টাকা আমরা খেয়ে ফেলিনি: ঢামেক পরিচালক

Desk Report
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০২০
  • ১৬৫ Time View

ক’রো'নাভা’ইরাসে চিকিৎসায় নিয়োজিত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা এসেছে বলে ত’থ্য পাওয়া গেছে।

গতকাল ম'ঙ্গলবার দেশের একটি জাতীয় দৈনিককে এ বি’ষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন।

এর আগে বি’ষয়টি নিয়ে জাতীয় সং’সদ অধিবেশনে বিতর্ক থেকে শুরু করে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

ঢামেকের স্বাস্থ্যকর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা কী করে হয়, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বি’ষয়ে গতকাল মুখ খুলেছেন ঢামেক পরিচালক।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, ‘গত ২ মে থেকে আমর'া এখানকার বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে এবং পরে গত ১৬ মে থেকে হাসপাতালের মূ’ল জেনারেল মেডিসিন বিভাগের দুই নম্বর ভবনে ক’রো'না চিকিৎসা চালু করেছি।

এই দুই জায়গা মিলিয়ে আমা'দের প্রায় ৮২০টি থেকে ৮৫০টি বেড ক্যাপাসিটি এবং এ মুহূর্তে আমা'দের এখানে প্রায় ৭০০ এর মতো ক’রো'না রো’গী আছে।’

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমা'দের প্রায় ১৫০ জনের মতো চিকিৎসক, ২৫০ জনের মতো নার্স ও ১০০ জনের বেশি কর্মচারী ও আনসার সদস্য ক’রো'নায় আ’ক্রা'ন্ত হয়েছেন।

তাই ক’রো'না আ’ক্রা'ন্তের বি’ষয়টিকে মাথায় রেখে স্বাস্থ্যকর্মীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোটেলে রাখা হচ্ছে।’

‘আমর'া প্রায় ৩০টি হোটেলে চিকিৎসক, নার্স, কর্মচারী, টেকনিশিয়ান, আনসার সদস্য, সিকিউরিটি গার্ডদের রেখেছি এবং সেখানে তারা তিন স'প্তাহের মতো অবস্থান করছেন।

এ পর্যন্ত সব মিলিয়ে ৩ হাজার ৬৮৮ জনকে হোটেলে রাখতে হয়েছে। আমর'া হিসাব করে দেখেছি, এতে করে আমা'দের প্রায় ১১ কোটি টাকার বেশি বিল ইতোমধ্যে চলে এসেছে।

তাই আমর'া পরবর্তী সময়কে হিসেবে ধরেই ২০ কোটি টাকার মতো বাজেট চেয়েছিলাম’ যোগ করেন ঢামেক পরিচালক।
তিনি আরও বলেন, ‘এখানে খাবারের বিল কেন হবে, খাবারের জন্য তো মাত্র ৫০০ টাকা করে পার্মানেন্ট।

একদিনে কোনো হোটেলের ভাড়া ২ হাজার টাকা, কোনো হোটেলের ৫০০ টাকা, কোনো হোটেলের আড়াই হাজার টাকা এবং কোনো হোটেলে ৫ হাজার টাকাও আছে।

হোটেলের ভাড়াই তো ম্যাক্সিমাম এক্সপেনডিচার, তারপর হচ্ছে তাদের খাবার ও যাতায়াত। আমা'দের এখানে যাতায়াতের জন্য প্রায় ১৫টি মিনিবাস, দুটি মাইক্রোবাস ও দুটি বাস রেখেছি।

এগু'লো দিয়ে প্রতিদিন তিন বেলা (সকাল, দুপুর, রাত) তাদের আনা-নেওয়া করা হচ্ছে। এই সবকিছু মিলিয়ে আমর'া আনুমানিক বলেছিলাম যে, দুই মাসে (মে ও জুন)…।’

ঢামেক পরিচালক বলেন, ‘আমা'দের কাছে জানতে চেয়েছিল, এই দুই মাসের জন্য আপনার কি পরিমাণ খরচ 'হতে পারে? ওই খরচটাই আমর'া উল্লেখ করেছি।

আমর'া হিসাব করে দেখেছি- দুই মাসে আমা'দের ২০ কোটি টাকার মতো লাগবে। এখানে রেলওয়ে হাসপাতাল আছে একটি, সেটিও আমর'া চালাচ্ছি এবং তার জন্য ১ কোটি টাকা ধরেছি। সবমিলিয়ে ১ কোটি টাকা লাগতে পারে আবার নাও লাগতে পারে।’

‘এটা তো একটা বাজেট। বাজেট তো একটু বেশি করেই আমর'া চাই সবসময়। তারপর আমা'দের যে বিল এসেছে, আমর'া স্ক্রুটিনাইজ করে দেখব।

যার যত বিল হবে হোটেলে, আমর'া সে অনুযায়ী তাকে বিল পে করব। যেটি থেকে যাব'ে সেটি আবার স’রকারের কোষাগারে জমা চলে যাব'ে। এটা তো একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া’, যোগ করেন তিনি।

ঢামেক পরিচালক বলেন, ‘একজন ভদ্রলোক একটা বক্তব্য দিলেন, সেটি নিয়ে সমগ্র দেশ বিভিন্ন রকম কমেন্টস করল, যা আমা'দের দারুণভাবে 'হতবাক করেছে। একজন লোক একটা মিথ্যা বক্তব্য দিলে পুরো দেশের মানুষ তার পেছনে চলে যাব'ে?’

তিনি আরও বলেন, ‘আমা'দের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, আমর'া আমা'দের এক্সপ্লানেশন দিয়ে দিব- কীভাবে খরচ করছি, কোন খাতে কত ব্যয় হচ্ছে।

আমা'দের পয়েন্ট হচ্ছে- যেসব ভদ্রলোকেরা বিভিন্ন মিডিয়াতে এ ধরনের মিথ্যাচার করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান ঢাকা মেডিকেল কলেজ এবং ক’রো'না পরিস্থিতিতে আমর'া যেভাবে জীবনের ঝুঁ’কি নিয়ে সবাই কাজ করছি, এই যে এক ধরনের মিথ্যা কথা বলে তাদেরকে অ’পদস্থ করা হলো- এটি যিনি করেছেন তার বি’রু'দ্ধে কি করা হবে, সেটি আমর'া জানতে চাই?’

‘আমর'া আমা'দের প্রমাণ দেব, আমর'া যদি অ্যাট ফল্টে থাকি। আমর'া তো স’রকারি কর্মকর্তা, আমা'দের বি’ষয়ে তো নিশ্চয়ই সেই সি’'দ্ধান্ত হবে যদি আমর'া সঠিকভাবে কাজ না করি।

কিন্তু যিনি বা যে প্রতিষ্ঠান বা যে ব্যক্তি এই মন্তব্য করে আমা'দের চিকিৎসক সমাজ ও আমা'দের এই বৃহৎ প্রতিষ্ঠানকে অ’পদস্থ করেছে, আমি তার বিচার চাই’ যোগ করেন এ কে এম নাসির উদ্দিন।

আজ বুধবার বেলা ১১টায় ঢামেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ বি’ষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলেও জানান ঢামেক পরিচালক।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
News Bulletin © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz